,
সংবাদ শিরোনাম :

সোফিয়া বললো ‘হ্যালো বাংলাদেশ’

আলোরকন্ঠ রিপোটঃ সঞ্চালক সোফিয়াকে বাংলাদেশে আসার জন্য অভিনন্দন জানান। জবাবে সোফিয়া বাংলাদেশের সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলে, ‘হ্যালো বাংলাদেশ। আই অ্যাম আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্ট ইন্ট্রিগ্রেটেড রোবট সোফিয়া।’

বিজ্ঞাপন সংস্থা গ্রে ঢাকার ব্যবস্থাপনা পরিচালক গাউছুল আলম শাওনের সঞ্চালনায় সোফিয়ার কাছে জানতে চায়, ‘সোফিয়া আপনি কী জানেন, এখন কোথায় আছেন?’ জবাবে সোফিয়া জানালেন, ‘আমি বাংলাদেশে আছি। এখানে আজ থেকে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড শুরু হয়েছে। সামনে হাজারও তরুণ আমার কথা শোনার জন্য অপেক্ষায় আছেন।’

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড মেলা উপলক্ষে প্রথম সামাজিক রোবট সোফিয়াকে নিয়ে ‘টেক টক উইথ সোফিয়া’ নিয়ে আয়োজন করা অনুষ্ঠানে হাসিমুখে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলে সোফিয়া।

আর্টিফিশিয়াল রোবট বিশ্বকে সহায়তা করবে বলে জানিয়েছে প্রথম কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক সামাজিক রোবট সোফিয়া। সে বলে, আমার মতো আরও রোবট তৈরি করা সম্ভব, আমি একা নই। তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলকের প্রশ্নের জবাবে সোফিয়া এ কথা বলে। প্রতিমন্ত্রীর প্রশ্ন ছিল, তার মতো আরও রোবট বানানো সম্ভব কি-না?

সোফিয়াকে নিয়ে আয়োজন করা অনুষ্ঠানের শুরুতে কথা বলেন ড. ডেভিড হ্যানসন। তার কাছে জানতে চাওয়া হয় পূর্ণাঙ্গ রোবট বানানো সম্ভব কি-না? জবাবে হ্যানসন বলেন, হ্যা, সম্ভব। এ সময় সামাজিক রোবটের নির্মাতা বলেন, সোফিয়ার সফ্টওয়্যারটি ওপেন সোর্স আকারে রয়েছে। বাংলাদেশের কেউ চাইলে এ সফ্টওয়্যার ডেভেলপ করতে পারবে। আমার পক্ষ থেকে তাকে স্বাগত।

অনুষ্ঠানস্থলে তরুণ-তরুণীদের উপচেপড়া ভিড় ছিল। তবে কারও মধ্যে কোনো ক্লান্তি ছিল না। সোফিয়াকে সামনে থেকে এক নজর দেখার জন্য অডিটোরিয়ামজুড়ে ছিল মানুষের ভিড়।’

সঞ্চালক প্রশ্ন করেন, সোফিয়া আপনি যে পোশাকটি পরেছেন তাতে আপনাকে মানিয়েছে বেশ। আপনি কী জানেন, আপনি কী পোশাক পরে আছেন? খানিকটা হেসে সোফিয়া বলে, আমি বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী জামদানি পোশাক পরেছি।

এরপর আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সোফিয়ার কাছে জানতে চান, একটি জাতিকে বদলানোর জন্য ডিজিটালাইজেশনের ভূমিকা কী হতে পারে? সোফিয়া বলে, জাতিকে বদলাতে হলে ডিজিটালাইজেশনের বিকল্প নাই।

উল্লেখ্য, রিয়াদে গত অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠানে রোবটটি প্রদর্শন করা হয়েছিল। প্রদর্শনীতে উপস্থিত শতশত প্রতিনিধি রোবটটি দেখে এতটাই মুগ্ধ হন যে সেদিনই এটিকে সৌদি নাগরিকত্ব দেয়া হয়। এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে সোফিয়ার ছবি শেয়ার হতে থাকে।

সোফিয়া নানা বিষয়ে অসংখ্য প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে। ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বিশাল তথ্যভাণ্ডারে যুক্ত থাকে সে। এছাড়া মানুষের সঙ্গী ও সহযোগী হিসেবেও কাজ করতে পারে সোফিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com