,
সংবাদ শিরোনাম :
» « ঠাকুরগাঁওয়ে ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট» « ইতালীতে ৪ বাংলাদেশীর বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ» « ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দূর্ঘটনায় ভুমি কর্মকর্তা নিহত» « ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের গুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত: দুই পুলিশ আহত» « বিরোধী দলকে দমন করতেই সরকার আইনশৃংখলা বাহিনীকে ব্যবহার করছে -বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল» « অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেস ক্লাবের প্যারিসে ইফতার মাহফিল» « ইতালীতে বই মেলায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীর কৃতিত্ব» « বাংলাদেশে পোল্যান্ড দূতাবাস স্থাপন ও পোল্যান্ড সরকারের সাথে সম্পর্ক স্থাপনে কাজ করছে বাংলাদেশ সরকার» « ঠাকুরগাঁও বিএডিসি শ্রমিকদের বিক্ষোভ ও কর্মবিরতি» « ঠাকুরগাঁওয়ে প্রযুক্তিগত শিক্ষা অর্জনের ভুমিকা সেমিনার

সপ্তাহব্যাপী পতনে ডিএসইএক্স দুই শতাংশ কমেছে

আলোরকন্ঠ রিপোর্টঃ গত সপ্তাহের (৬-১০ মে) পাঁচ কার্যদিবসের প্রতিদিনই দেশের শেয়ারবাজারে মূল্যসূচকের পতন হয়েছে। সপ্তাহব্যাপী এই টানা পতনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে প্রায় দুই শতাংশ। প্রধান সূচকের পাশাপাশি অন্য সূচক দু’টিরও বড় পতন হয়েছে। সেই সঙ্গে কমেছে গড় লেনদেনের পরিমাণ।

গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১১১ দশমিক ৪৭ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৯৬ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমেছিল ১১৫ দশমিক ১১ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৯৮ শতাংশ।

অপর দুটি সূচকের মধ্যে গত সপ্তাহে ডিএসই-৩০ কমেছে ৫৪ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৫৭ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমে ৪৩ দশমিক ৫০ পয়েন্ট বা ২ শতাংশ।

আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক গত সপ্তাহে কমেছে ১১ দশমিক ৮০ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৯ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এই সূচকটি কমেছিল ২৪ দশমিক ৯৭ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ১১৯টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে কমেছে ১৯৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির দাম।

মূল্যসূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহে লেনদেনের পরিমাণও কমেছে। সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৫২৩ কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৫৩৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ১০ কোটি ৯১ লাখ টাকা বা ১ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

অবশ্য গত সপ্তাহে মোট লেনদেন আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। এ লেনদেন বাড়ার কারণ আগের সপ্তাহে মাত্র দুই কার্যদিবস লেনদেন হয়। গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৬১৭ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ১ হাজার ৫৫০ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।

গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৮৯ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এছাড়া বাকি শেয়ারের মধ্যে ৭ দশমিক ১২ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ২ দশমিক ৬৪ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ১ দশমিক ২০ শতাংশ ছিল ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির দখলে।

এদিকে মূল্যসূচক ও লেনদেনের পাশাপাশি গত সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধনের পরিমাণও কমেছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস (বৃহস্পতিবার) শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৯৩৩ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৩ লাখ ৯৮ হাজার ৩৪২ কোটি টাকা।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অংকে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। কোম্পানিটির মোট ১৩৭ কোটি ২৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপয়ার্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১০৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকার। যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৩ দশমিক ৯৯ শতাংশ। ৮৩ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- বিবিএস কেবলস, স্কয়ার স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, ব্র্যাক ব্যাংক, নাভানা সিএনজি, ড্রাগন সোয়েটার, বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলস এবং ডরিন পাওয়ার জেনারেশন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com