,
সংবাদ শিরোনাম :
» « ঠাকুরগাঁও অনলাইন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃত্বে বকুল-শাকিল» « কিংবদন্তী ব্যান্ড সংগীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু আর নেই» « ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকদের সাথে শিশু সুরক্ষা বিষয়ক সংলাপ» « ঠাকুরগাঁওয়ে এবারও শ্রেস্ট ফাড়াবাড়ি দূর্গা মন্ডপ বলে মনে করছেন ভক্তরা» « জাতীয় ঐক্য গঠন করা হয়েছে দেশের গনতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করার জন্য -মির্জা ফখরুল» « বিশ্বকাপ ট্রফি এখন ঢাকায়» « নারীদেরকে অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে যুক্ত হয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে- জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান» « বালিয়াডাঙ্গীতে ভ্রাম্যমাণ থেরাপী সেবা ক্যাম্পের উদ্বোধন» « বাঁশগাড়া সরকারি প্রাইমারী স্কুলে অভিভাবক সদস্য নির্বাচন অনুষ্ঠীত» « সাংবাদিকদের সাথে রংপুর ডিআইজি’র মতবিনিময়

ইতালীতে ৪ বাংলাদেশীর বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ

জাকির হোসেন সুমন , ব্যুরো চীফ ইউরোপ : ইতালীতে ধর্ষনের হাত থেকে বিদেশী নারীকে রক্ষার পর এবার ৪ বাংলাদেশীদের বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে।

সম্প্রতি ইতালীর ফিরেন্সে এক ইতালীয়ান নারীকে যৌন নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা করে ব্যাপক সুনাম অর্জন করে এক বাংলাদেশী যুবক। কিন্ত এবারে তার পূরো উল্টো। বিগত দিনে ইতালীতে বাংলাদেশীদের সুনাম অক্ষুন্ন থাকলেও এবার হয়ত তা আর সুরক্ষিত রইল না।

গত শুক্রবার রাতের ঘটনা। রিবিবিয়া ফেরমাতায় ৪৩ বছর বয়স্ক এক মহিলা বাসের জন্য অপেক্ষমান ছিল। পথিমধ্যে লাল পান্ডা একটি গাড়ী এসে থামে এবং একজন লোক গাড়ী থেকে নেমে বাসের জন্য অপেক্ষমান ঐ মহিলার সাথে কথা বলা শুরু করে। মহিলাকে তার নাম, কত্থেকে এসেছে কোথায় যাচ্ছে এসব কথা জানতে চাচ্ছিল লোকটি।

এক পর্যায়ে মহিলাকে গাড়ীতে উঠতে বল্লে মহিলা অপারগতা প্রকাশ করলে গাড়ীতে থাকা অপরজন নেমে এসে মহিলাকে জোরপূর্বক গাড়ীতে তুলে নেয়। পরবর্তীতে হাইওয়ে ধরে গুইদোনিয়া পৌর সভা এলাকার একটি ব্রীজের নিচে পরিত্যাক্ত স্থানে নিয়ে তাকে ধর্ষন করে, যেখানে অপেক্ষমান ছিল আরোও ২জন ধর্ষক। মহিলাটি বার বার তাদের হাত থেকে বাঁচার চেষ্টা করলেও তাকে ছুরি দিয়ে প্রান নাশের হুমকি এবং মারধর করে আহত করে পাষন্ডরা।

ইল জরনালে পত্রিকার খবরে বলা হয়, ধর্ষনের পর ঐ মহিলা কোন মতে পার্শ¦বর্তী একটি পেট্রোল পাম্পে গিয়ে জরুরী নাম্বারে কল করলে উদ্ধার কর্মীরা এসে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। মহিলার বর্ণনা ও খবরের সূত্রমতে ৪ অভিযুক্ত বাংলাদেশী ছিল বলে জানা গেছে ।

এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার জোর তদন্তে নেমেছে আইন ও নিরাপত্তা প্রসাশনের লোকেরা। এখন পর্যন্ত কাউকে আটক না করতে পারলেও নিরাপত্তা ক্যামেরাগুলো খতিয়ে দেখছে এবং দ্রতই অপরাধীদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে খবরের সূত্রে জানা যায়।

ইতালীতে মাদক ব্যবসা সহ ছোটখাট অপরাধের সাথে জড়ানোর কথা শোনা গেলেও এই ধরনের বড় কোন অপরাধে বাঙ্গালীর নাম শোনা যায়নি এর আগে কখনোও।

গুটিকয়েক অপরাধির জন্য একটি দেশ ও জাতির সুনাম ক্ষুন্ন হোক এটা কারোও কাম্য নয়। প্রবাসীরা চায় অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক। যাতে করে ইতালীতে বেড়ে উঠা পরবর্তী প্রজন্ম এই দৃষ্টান্ত দেখে পথভ্রষ্ট না হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com