,
সংবাদ শিরোনাম :

সরকার সংবিধানের বাইরে এক চুলও নড়বে না-

মোঃ রেজাউল করিম, ঈদগাঁও ,কক্সবাজারসড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকার সংবিধানের বাইরে এক চুলও নড়বে না । বিএনপি নির্বাচনে আসুক বা না আসুক । তিনি বলেন , বিএনপি আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ ও উম্মাদের দল । এ অনৈতিক দলের কাছে দেশ , সংবিধান ও আইনের শাসন নিরাপদ নয়। তিনি (২৩ সেপ্টেম্বর) আজ রাতে কক্সবাজার সদর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে উপরোক্ত কথা বলেন। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু তালেবের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল করিম মাদুর সঞ্চালনায় এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, আইন বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক মন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, উপ -দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক আমিন, উপ-প্রচার সম্পাদক ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া , বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সফর আলম, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেল চৌধুরী, সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, আব্দুর রহমান বদি, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী , কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লেঃ ,কর্নেল (অব) ফোরকান আহমদ ,জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা , সাধারণ সম্পাদক, কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, জেলা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী কানিজ ফাতেমা মোস্তাক, রামু উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলম, সাবেকউপজেলা চেয়ারম্যান সোহেল সরওয়ার কাজল টেকনাফ উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আহমদ প্রমুখ। সেতু মন্ত্রী আরো বলেন, বিএনপি গত দশ বছরে ১০ মিনিটের জন্য ও আন্দোলন করতে পারেনি ।কিভাবে তারা আন্দোলনে সফল হবে? জনগণ তো তাদের পাশে নেই। আগামী নির্বাচনে বিএনপিকে তাদের নানা অপকর্মের জন্য সমুচিত জবাব দিতে হবে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন , ধানের শীষ পেটের বিষ , সাপের বিষ । জনগণ ধানের শীষ চায়না । যেটা গত পৌর নির্বাচনে কক্সবাজারবাসী প্রমাণ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন , ঐক্যবদ্ধ হলে নৌকার বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না । আগামীতে বিএনপি’র এই দুর্গে আঘাত হানতে হবে। ভোটের মাঠে বিজয়ী হতে হবে। তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট এসিআর রয়েছে । যাদের জনপ্রিয়তা বেশি তিনি তাদেরকে মনোনয়ন দেবেন । সেতুমন্ত্রী পোস্টার, ব্যানার, বিলবোর্ড ও সুন্দর সুন্দর ব্যানারের জন্য এত টাকা কোথায় পান প্রশ্ন তুলেন । তিনি সুন্দর আচরণের মাধ্যমে জনগণের নিকট জনপ্রিয়তা অর্জন করার পরামর্শ দেন । ওবায়দুল কাদের সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনীর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিচারের পথ রুদ্ধ করতে ইনডেমনিটি বিল পাস করা হয়েছিল বলে উল্লেখ করেন। মন্ত্রী বিএনপির গঠনতন্ত্র থেকে রাতারাতি সাত ধারা বাতিলের সমালোচনা করেন। জাতীয় ঐক্য সম্পর্কে তিনি বলেন, ওই দিন যে ১০ জন মঞ্চে ছিলেন । তাদের সকলের চোখেমুখে ছিল ঘুমের ভাব। এ ঘুম নিয়ে কিভাবে তারা আন্দোলন করবেন ।
মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, দেশে এখন শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় । কোথাও লোডশেডিং নেই । বর্তমান সরকারের আমলে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে । সকলের মাথাপিছু আয় বেড়েছে । তার মতে শেখ হাসিনা মানে বাংলাদেশের উন্নয়ন । তিনি বলেন , একাত্তরের পরাজিত শক্তি বিএনপি-জামায়াত দেশকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র বানাতে চায় । কিন্তু জনগণ তাদের কে আঁস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত করবেন । তারা যুদ্ধাপরাধের বিচার কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করেছে । ২০১৫ সালে পেট্রোল বোমা চালিয়ে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে । বিএনপির উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, বিদেশিদের কাছে ধরনা দিয়ে কোন লাভ হবে না । জনগণ যতদিন শেখ হাসিনার পক্ষে থাকবেন ততদিন তিনি রাষ্ট্রক্ষমতা পরিচালনা করবেন। ঐক্য প্রক্রিয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, জনবিচ্ছিন্ন, গণধিকৃত, মুনাফিকদের নিয়ে জাতীয় ঐক্য হয়েছে । বিএনপি’র ভরসায় বি, চৌধুরী হুঙ্কার ছাড়ছে । খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এতিমের টাকা আত্মসাৎ করার কারণে আইনি প্রক্রিয়ায় দোষী হয়ে তিনি কারাগারে রয়েছেন । এখন তাকে মুক্ত করতে হলে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করতে হবে। অথবা মহামান্য রাষ্ট্রপতির নিকট ক্ষমা চাইতে হবে। এ ছাড়া অন্য কোন উপায় নেই তাকে মুক্ত করার।
সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু বলেন বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। জননেত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের নেত্রী । তার সরকার দেশের অভূতপূর্ণ উন্নয়ন করেছে । এর জন্য দেশবাসী আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করবেন । তিনি উপস্থিত জনগণের নিকট বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। সমাবেশে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

Sent from my Samsung Galaxy smartphone.
5 Attachments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com