,
সংবাদ শিরোনাম :
» « আওয়ামী লীগ চায় দেশের জনগণ ভালো থাকুক, দেশ উন্নয়নের রোড মডেলে পরিণত হোক – রমেশ চন্দ্র সেন» « পঞ্চগড়ের গাড়াতি বিলুপ্ত ছিটমহলে কমিউনিটি ক্লিনিকের উদ্বোধন» « খুলনা জেলার দাকোপের বানিশান্তায় বিএএসডি কতৃক আশার প্রদিপ সমবায় লিঃ নিকট বিল্টপ্রকল্পের দায়িত্ব হস্তান্তর» « রাণীশংকৈলে আবু সুফিয়ানের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বইয়ের আত্ম প্রকাশ» « খুলনার দাকোপের বানিশান্তা ইউনিয়ন পরিষদে লজিক প্রকল্প সম্পর্কে প্রকল্প পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত» « ঠাকুরগাঁও রুহিয়ায় পুকুর হতে বালু উত্তোলনের সময় পাওয়া কষ্টি পাথরের মুর্তি নিয়ে পরশুরাম আত্মগোপনে» « পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২২মে বুধবার সকাল থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু» « ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে সরকারিভাবে ধান সংগ্রহ শুরু করেছেন» « ঠাকুরগাঁওয়ে সেই রোমহর্ষক হত্যা মামলার মূল ৩ আসামী গ্রেফতার» « ঠাকুরগাঁওয়ে গম ও ধান সংগ্রহ অভিযান শুরু

পঞ্চগড়ে বিচারকের আদেশ অমান্য করায় সরকারি কর্মচারীর তিন মাসের জেল

পঞ্চগড় প্রতিনিধি\পঞ্চগড়ে বিচারকের আদেশ অমান্য করায় দিনাজপুর গণপূর্ত বিভাগের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক সেলিম লিটনকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে পঞ্চগড় সহকারী জজ ও পারিবারিক আদালতের (দেবীগঞ্জ উপজেলা) বিচারক ভগবতী রাণী এই দন্ডাদেশ দেন।

মামলার বিবরণে সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার পামুলী ইউনিয়নের হেদায়েতপুর গ্রামের কবির হোসেন প্রধানের মেয়ে সিফাত-ই-তানজিলা সিজতির সঙ্গে দিনাজপুর জেলা উপশহর এলাকার সেরাজ উদ্দিনের ছেলে দিনাজপুর গণপূর্ত বিভাগের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক সেলিম লিটনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তিন বছর পর ওই দম্পত্তির একটি ছেলে সন্তান জন্ম হয়। কিন্তু দাম্পত্য কলহের কারণে ২০১৬ সালের জুনে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এরপর সন্তান নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে দ্বন্দ চলতে থাকে। এক পর্যায়ে শালিসের কথা বলে সেলিম লিটন তাদের সাত বছর বয়সী ছেলে সাফওয়ান আহমদকে নিয়ে পালিয়ে যায়। সন্তানকে ফিরে পাওয়ার জন্য সিফাত-ই- তানজিলা সিজতি ২০১৭ সালে আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ২০১৮ সালের ৪ এপ্রিল আদালতের বিচারক মিনহাজুর রহমান ১৫ দিনের মধ্যে সন্তানকে তার মায়ের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেন। পরে সেলিম লিটন জেলা জজ ও পারিবারিক আপিল আদালতে আপিল করেন। কিন্তু আদালতের বিচারক পূর্বের রায় বহাল রাখেন এবং ১৮ এপ্রিল সন্তানসহ সেলিম লিটনকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু সেলিম তার সন্তানকে আদালতে হাজির না করায় আদালত তাকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী একেএম আনোয়ারুল ইসলাম খায়ের বলেন, আসামী সেলিম লিটন আদালতে আদেশ অমান্য করায় তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। তবে লিটন তার সন্তানকে আদালতে হাজির না করলে তিন মাস পর আদালত আবারও তার বিরুদ্ধে সাজার নির্দেশ দিতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com